Home » নিউমোনিয়া কি, কেন হয় এবং লক্ষণ গুলো কি কি?
নিউমোনিয়া কি কেন হয় এবং রোগের লক্ষণ

নিউমোনিয়া কি, কেন হয় এবং লক্ষণ গুলো কি কি?

by Dr. ABM Khan
0 comment 198 views

নিউমোনিয়া হল ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাল বা ছত্রাকজনিত সংক্রমণের কারণে ফুসফুসে প্রদাহজনিত একটি রোগের নাম। এই রোগ হলে শ্বাস নিতে অসুবিধা হয় এবং হলুদ, সবুজ বা রক্তাক্ত শ্লেষ্মা সহ জ্বর এবং কাশি হতে পারে। ফ্লু, কোভিড-১৯ এবং নিউমোকোকাল রোগ নিউমোনিয়ার সাধারণ কারণ। নিউমোনিয়ার চিকিৎসা এর কারণ ও তীব্রতার ওপর নির্ভর করে। আজ জানবো নিউমোনিয়া কি, নিউমোনিয়া কেন হয় এবং নিউমোনিয়া রোগের লক্ষণ কি কি?

নিউমোনিয়া কি?

নিউমোনিয়া হল আপনার ফুসফুসে ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাল বা ছত্রাক সংক্রমণের দ্বারা সৃষ্ট একটি রোগ। নিউমোনিয়ার কারণে আপনার ফুসফুসের টিস্যু ফুলে যায় (প্রদাহ) এবং আপনার ফুসফুসে তরল বা পুঁজ হতে পারে। ব্যাকটেরিয়াল নিউমোনিয়া সাধারণত ভাইরাল নিউমোনিয়ার চেয়ে বেশি গুরুতর হয়, যা প্রায়শই আপনা আপনি ভালো হয়ে যায়। নিউমোনিয়া এক বা উভয় ফুসফুসকে প্রভাবিত করতে পারে। আপনার উভয় ফুসফুসের নিউমোনিয়াকে দ্বিপাক্ষিক বা ডাবল নিউমোনিয়া বলা হয়।

আরও পড়ুন:   উচ্চ রক্তচাপ কেন হয় ও কমানোর উপায় কি?

ভাইরাল এবং ব্যাকটেরিয়া নিউমোনিয়ার মধ্যে পার্থক্য কি?

যদিও সমস্ত নিউমোনিয়ায় আপনার ফুসফুসে প্রদাহের সৃষ্টি করে, তবে মূল কারণটি ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া বা ছত্রাক কিনা তার উপর নির্ভর করে আপনার বিভিন্ন উপসর্গ থাকতে পারে। ব্যাকটেরিয়াল নিউমোনিয়া ভাইরাল নিউমোনিয়ার চেয়ে সাধারণ এবং গুরুতরও হতে পারে। এই নিউমোনিয়া হলে আপনাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে পারে। সাধারণত চিকিৎসকরা অ্যান্টিবায়োটিক দিয়ে ব্যাকটেরিয়া নিউমোনিয়ার চিকিৎসা করে।

ভাইরাল নিউমোনিয়া ফ্লু-এর মতো উপসর্গ সৃষ্টি করে এবং এটি নিজে থেকেই ভালো হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। ভাইরাল নিউমোনিয়ার জন্য আপনার সাধারণত নির্দিষ্ট চিকিত্সার প্রয়োজন হয় না।

কাদের নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি?

সাধারণত ৬৫ বছরের বেশি এবং বা ২ বছরের কম বয়সী যারা, তারা নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে থাকেন বেশি। এছাড়া ফুসফুস বা হার্টের সমস্যা যাদের আছে তারাও এই ঝুঁকির মধ্যে থাকেন। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়- সিস্টিক ফাইব্রোসিস, হাঁপানি, দীর্ঘস্থায়ী অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ, এমফিসেমা, পালমোনারি ফাইব্রোসিস বা সারকোইডোসিস ইত্যাদি।

এছাড়া ডিমেনশিয়া, পারকিনসন্স ডিজিজ এবং স্ট্রোকের মতো সমস্যা যাদের আছে তারাও অ্যাসপিরেশন নিউমোনিয়ার ঝুঁকির মধ্যে থাকেন।

দীর্ঘমেয়াদে হাসপাতালে যারা কাজ করেন, ধূমপায়ী এবং গর্ভবতীদেরও নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।।

যাদের ইমিউন সিস্টেম দূর্বল, কেমোথেরাপি নিয়েছেন, এইচআইভি/এইডস আছে বা আপনার রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে দুর্বল করে এমন ওষুধ সেবন করেন তাহলেও আপনার নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে।

নিউমোনিয়া রোগ কতটা কমন?

যে কেউ যেকোন সময় নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হতে পারে। এটি একটি কমন রোগ। প্রতি বছর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে লক্ষ লক্ষ লোক এই রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকেন। এবং শুধুমাত্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি বছর প্রায় ৫০ হাজারের বেশি মানুষ নিউমোনিয়ায় মারা যান। উন্নয়নশীল দেশগুলোতে এই মৃত্যুহার আরও বেশ্

নিউমোনিয়ার লক্ষণ ও উপসর্গ কি কি?

নিউমোনিয়ার লক্ষণ গুলো বিভিন্ন কারণের উপর নির্ভর করে। লক্ষণ গুলো হালকা থেকে গুরুতর পর্যন্ত হতে পারে। শিশু, ছোট শিশু এবং বয়স্ক প্রাপ্তবয়স্কদের বিভিন্ন ধরনের উপসর্গ দেখা দিতে পারে। নিম্নে নিউমোনিয়া রোগের লক্ষণ গুলো ধারাবাহিক ও বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হলো-

ব্যাকটেরিয়াল নিউমোনিয়ার লক্ষণ

ব্যাকটেরিয়া নিউমোনিয়ার লক্ষণগুলি ধীরে ধীরে বা হঠাৎ বিকাশ করতে পারে। এর উপসর্গ গুলো নিম্নরূপ:

  • উচ্চ জ্বর (১০৫ F বা ৪০.৫৫ C পর্যন্ত)
  • হলুদ, সবুজ বা রক্তাক্ত শ্লেষ্মা সহ কাশি
  • ক্লান্তি (ক্লান্তি)
  • দ্রুত শ্বাস – প্রশ্বাস
  • নিঃশ্বাসের দুর্বলতা
  • দ্রুত হার্ট রেট
  • ঘাম হওয়া বা ঠান্ডা লাগা
  • বুকে ব্যথা এবং/অথবা পেটে ব্যথা, বিশেষ করে কাশি বা গভীর শ্বাসের সাথে
  • ক্ষুধামান্দ্য
  • নীলাভ ত্বক, ঠোঁট বা নখ (সায়ানোসিস)
  • বিভ্রান্তি বা পরিবর্তিত মানসিক অবস্থা।

ভাইরাল নিউমোনিয়ার লক্ষণ

ভাইরাল নিউমোনিয়ার লক্ষণ গুলো সাধারণত কয়েক দিনের মধ্যে বিকাশ লাভ করে। আপনার ব্যাকটেরিয়া নিউমোনিয়ার মতো উপসর্গ থাকতে পারে বা এর চেয়ে বেশিও হতে পারে। এই নিউমোনিয়ার উপসর্গগুলো নিম্নরূপ-

  • শুষ্ক কাশি
  • মাথাব্যথা
  • পেশী ব্যথা
  • চরম ক্লান্তি বা দুর্বলতা।

শিশুদের নিউমোনিয়া রোগের লক্ষণ

pneumonia in children

শিশু এবং নবজাতকদের নিউমোনিয়ার কোনো উপসর্গ নাও দেখা যেতে পারে বা তাদের লক্ষণ গুলো প্রাপ্তবয়স্কদের থেকে আলাদা হতে পারে। এসব লক্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে-

  • জ্বর,
  • ঠাণ্ডা,
  • সাধারণ অস্বস্তি,
  • ঘাম/উজ্জ্বল ত্বক।
  • কাশি,
  • শ্বাস নিতে অসুবিধা বা দ্রুত শ্বাস প্রশ্বাস (ট্যাচিপনিয়া),
  • ক্ষুধামান্দ্য,
  • বমি,
  • শক্তির অভাব,
  • অস্থিরতা।

শিশু এবং ছোট বাচ্চাদের নিউমোনিয়া হলে আপনি যেসব লক্ষণ দেখতে পাবেন সেগুলো হলো-

  • শ্বাস-প্রশ্বাসের সাথে কোলাহলপূর্ণ শব্দ।
  • কম ভেজা প্রস্রাব বা ডায়াপার কমে যাওয়া।
  • ফ্যাকাশে চামড়া।
  • লিম্পনেস।
  • স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি কাঁদা।
  • খাওয়ানোর অসুবিধা।

৬৫ বছরের বেশি বয়সীদের নিউমোনিয়ার লক্ষণ

pneumonia in adults above 65

৬৫ বছরের বেশি বয়সী বা যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল তাদের নিউমোনিয়ার হালকা বা কম লক্ষণীয় লক্ষণ (যেমন কাশি এবং শ্বাসকষ্ট) থাকতে পারে। চলমান স্বাস্থ্যের অবস্থার লক্ষণগুলি আরও খারাপ হতে পারে। বয়স্কদের ক্ষেত্রে এই লক্ষণগুলো নিম্নরূপ-

  • মানসিক অবস্থার হঠাৎ পরিবর্তন,
  • কম ক্ষুধা, ও
  • ক্লান্তি।

আরও পড়ুন:   চর্বির কাজ কি? অতিরিক্ত চর্বি আমাদের কি কি ক্ষতি করে?

নিউমোনিয়া কেন হয়?

যখন আপনার দুর্বল ইমিউন সিস্টেমের কারণে আপনার ফুসফুসের ছোট থলিতে (অ্যালভিওলি) সংক্রমণ ঘটে তখন নিউমোনিয়া হতে পারে। এর ফলে আপনার ফুসফুস ফুলে যায় এবং তরল বের হয়। আবার অনেক ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস এবং ছত্রাক সংক্রমণের কারণেও নিউমোনিয়া হতে পারে। প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ব্যাকটেরিয়া সবচেয়ে সাধারণ কারণ এবং স্কুল-বয়সী শিশুদের মধ্যে ভাইরাস সবচেয়ে সাধারণ কারণ। এছাড়া নিউমোনিয়া হতে পারে এমন সাধারণ অসুস্থতা বা রোগগুলো হলো-

  • সাধারণ ঠান্ডা (রাইনোভাইরাস)।
  • কোভিড-১৯।
  • ফ্লু (ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস)।
  • হিউম্যান মেটাপনিউমোভাইরাস (HMPV)।
  • হিউম্যান প্যারাইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস (HPIV)।
  • Legionnaires রোগ।
  • মাইকোপ্লাজমা নিউমোনিয়া ব্যাকটেরিয়া।
  • নিউমোকোকাল রোগ।
  • নিউমোসিস্টিস নিউমোনিয়া।
  • রেসপিরেটরি সিনসিশিয়াল ভাইরাস (আরএসভি)।

নিউমোনিয়া কি সংক্রামক?

নিউমোনিয়া আসলে সংক্রামক নয়, তবে যেসব ব্যাকটেরিয়া এবং ভাইরাস এটি ঘটায় তারা সংক্রামক। উদাহরণস্বরূপ- ফ্লু সংক্রামক এবং এর ফলে নিউমোনিয়া হতে পারে। তবে বেশিরভাগ লোক যারা ফ্লুতে আক্রান্ত হয় তারা নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয় না। যে ব্যাকটেরিয়াটি সাধারণত নিউমোনিয়া সৃষ্টি করে, অর্থাৎ স্ট্রেপ্টোকক্কাস নিউমোনিয়া (Streptococcus pneumoniae), সংক্রামিত ব্যক্তির কাশি এবং হাঁচির মাধ্যমে অন্য ব্যক্তিতে ছড়িয়ে পড়তে পারে। তবে ছত্রাক দ্বারা সৃষ্ট নিউমোনিয়া সংক্রামক নয়। ছত্রাকের সংক্রমণ ভাইরাস এবং ব্যাকটেরিয়ার মতো ব্যক্তি থেকে ব্যক্তিতে ছড়ায় না।

শেষ কথা

আমরা এতক্ষণ নিউমোনিয়া কি, নিউমোনিয়া কেন হয়, নিউমোনিয়া রোগের লক্ষণ, কারা বেশি নিউমোনিয়ার আক্রান্ত হতে পারে নিউমোনিয়ার করণ এবং নিউমোনিয়া সংক্রামক কিনা এসব বিষয় পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে জানলাম। আশাকরি নিউমোনিয়া সম্পর্কে ভালো ধারণা অর্জন করেছেন। এরপরও যদি কোন বিষয় জানার থাকে তারা কমেন্টে লিখে জানাতে পারবেন।

You may also like

Leave a Comment